Connect with us

রূপালী আলো

আমাকে কমপক্ষে ৫০ জন মিলে রেপ করতো, অল্পের জন্য…

Published

on

Tanzim Naimah

আমাকে কমপক্ষে ৫০ জন মিলে রেপ করতো, অল্পের জন্য…রাজধানীর বনানীতে ভয়াবহ বিপর্যয়ের হাত থেকে রক্ষা পেলেন এক নারী। সময়মত পুলিশ না এলে কঠিন বিপদে পড়তে হতো ওই নারীকে। বিপদে পড়া সেই নারী সেদিনের কথাগুলো তার ফেসবুক স্ট্যাটাসে বিস্তারিত তুলে ধরেছেন। পাঠকদের জন্য সেই স্ট্যাটাসটি হুবহু তুলে ধরা হলো।

“গতকাল সন্ধ্যায় আমি একটুর জন্য গ্যাং রেপড হওয়া থেকে বেঁচে গেছি। এর জন্য কৃতজ্ঞতা জানাই বনানী থানার পুলিশদের। উনারা এসে আমাকে না বাঁচালে আমাকে কমপক্ষে ৫০ জন মিলে রেপ করতো। যদিও তারা রেপ এর কাছাকাছি মজাই পাইছে।

ঘটনাটা একটু বিস্তারিত বলি। আমি প্রতিদিম মিরপুর ১০ থেকে বনানীতে টিউশনি করতে যাই। ট্রাস্ট এর আর্মি ওয়েলফেয়ার বাসে করে কাকলীতে নামি, কিন্তু বেশিরভাগ দিনই কাকলী পর্যন্ত বাস যায় না, তার আগে সৈনিক ক্লাব এর নামায়ে দেয়।

কাকলীতে গেলে নাকি বাসটাকে মহাখালী ফ্লাইওভার হয়ে ঘুরে আসতে আসতে অনেক সময় লেগে যায়। যাই হোক, গতকাল সন্ধ্যাতেও আমাকে সৈনিক ক্লাব এ নামায়ে দিলো।

আমি রাগে গজগজ করতে করতে রাস্তা পার হচ্ছিলাম। তাখনই একলো এসে পিছন থেকে আমার পাছায় খুব জোড়ে থাপ্পর দিয়ে জোড়ে হাঁটা শুরু করলো।আমি সাথে সাথে লোকটার পিছনে দৌড়ানো আরম্ভ করলাম।

সে যখন দেখলো আমি তার পিছনে দৌড়াচ্ছি সে দৌড়ায়ে রাস্তা পাড় হয়ে সৈনিক ক্লাব ওভার ব্রিজ এর কাছে চলে গেলো। আমি তখন তার পিছনে পাগলের মতন দৌড়াচ্ছি।

এই দৌড়াদৌড়িতে রাস্তার মানুষ মনে করছে ঐ লোক মনে হয় আমার মোবাইল নিয়ে দৌড় দিছে। ওভারব্রিজ এর উপরে তারা ৬-৮ জন মিলে লোকটাকে ধরলো।

আমি ততক্ষণে ওভারব্রিজ পর্যন্ত চলে গেছি, আর চিৎকার করতেছি, ওরে ধরে রাখেন, আমি আসতেছি। ৮-১০ মিলে দুইপাশ ছিনতাইকারী সন্দেহে থেকে ধরে ছিলো, তারপর আমি যখন ওই লোকের সামনে গিয়ে বললাম যে, সে আমার গায়ে হাত দিছে, তখন তারা বললো, “ওহ, হায়ে হাত দিছে? মোবাইল নেয় নাই? আমরা তো ভাবছি মোবাইল টান দিছে তাই ধরছি।“ যেন গায়ে হাত দেওয়া কোনও ঘটনাই না, একটা মেয়ে রাস্তায় বের হলে একটু আধটু গায়ে হাত দেওয়াই যায়।

তার পরের ঘটনা শুনেন, আমি তখনই বুঝতে পারছিলাম এরা এই লোককে ছেড়ে দিবে, আমি কিছুই করতে পারবো না। আমার Pepper Spray আমার হাতেই ছিলো, আমি লোকটার চোখে মরিচের গুড়া স্প্রে করে দিলাম। যেহেতু আশে পাশে মানুষ ছিলো, তাদের গায়েও কিছুটা স্প্রে লাগছিলো।

এতক্ষণ আমি ছিলাম ভিকটিম, ওই লোক ছিলো ছিনতাইকারী। এইবার ওই লোক হয়ে গেলো ভিকটিম, আর আমি হয়ে গেলাম মলম পার্টি! কারন, এই ক্ষ্যাত, অশিক্ষিত বাঙ্গালি Pepper Spray কী জিনিষ তা জানেই না।

এইবার তারা বুঝলো যে আমি মলম পার্টি হই, আর যাই হই আমাকে ইচ্ছামতন রেপ করা যাবে, আমার টাকা-পয়সা, মোবাইল সব কেড়ে নেওয়া যাবে। ২০-৩০ জন আমাকে চারপাশ থেকে ঘিরে ধরলো, আমাকে বেশ্যা, খানকি, প্রস্টিটিউট বলে গালি দিলো, আমার ব্যাগ টান দেওয়ার চেষ্টা করলো,

আমার ওড়না ধরে টান দিলো, আমাকে বেশ কয়েকটা থাপ্পড় দিলো, আমার বুকে, গায়ে, পাছায় ইচ্ছামতন হাতড়ালো, চুলের মুঠি ধরে এক দোকানের শাটারের সাথে মাথা ঠুকে দিলো, লাথি দিয়ে রাস্তায় ফেলে দিলো, রাস্তায় ফেলে আরো ২-৩টা লাথি দিলো, তারপর বললো, “তুই আজকে শেষ, আজকে তোকে ইচ্ছামতন চু**,

তারপর তোর গলা টিপে মেরে তোরে ড্রেইনে ফেলে দিবো।”, এরমধ্যে তো মারধোর, আর বুকে-গায়ে-পাছায় হাতানো চলছেই। পুরা ঘটনাটা তারা আবার অনেকে মোবাইলে ভিডিও-ও করছিলো।

তখনই বনানী থানার থেকে পুলিশ এসে সবাইকে লাঠীচার্জ করে আমাকে সেই রেপিস্টদের ভিতর থেকে উদ্ধার করলো, টানতে টানতে পুলিশের জীপে নিয়ে গেলো, ধাক্কা দিয়ে জীপের ভিতরে ফেলে দিলো, এরজন্য পুলিশদের প্রতি আমার বিন্দুমাত্র অভিযোগও নাই, তারা মলমপার্টির গ্যাংদেরকে এভাবেই ধরে।

এমনকী তারা পুলিশের জীপে উঠানোর পর আমাকে হ্যান্ডকাফও পরায় নাই, গায়েও হাত দেয় নাই, পানি খেতে চাইছি, পানিও খেতে দিছে।

তারপর বনানী থানায় নিয়ে গিয়ে আমাকে প্রথমে ওসির সামনে নিয়ে গেলো, ওসিকে আমাকে জিজ্ঞেস করলো, “এই ব্যবসা কতদিন ধরে করিস?” আমি বললাম, “আমি কোন মলমপার্টি না, আমি এখানে পড়াতে আসছি, আমাকে শুধু একটা ফোন করতে দেন আমার বাসায়, ওরা এসে সব বুঝায়ে দিবে।”

তারা তখনও বিশ্বাস করে না, কারণ বাংলাদেশের পুলিশ আজ পর্যন্ত Pepper Spray এর নামই শুনে নাই, চোখে দেখা তো দূরের কথা।

আত্মরক্ষার জন্যও যে কেউ নিজের সাথে এই জিনিশ রাখতে পারে তা তাদের মাথায়ও আসে নাই। আসবে কী করে? Pepper Spray কী জিনিশ তারা কী জানে নাকী?

তাদেরকে কি এই বিষয়ে কোন ধারণা দেওয়া হয়েছে? তারা কী জানে যে, প্রথম বিশ্বের প্রতিটা মেয়ে তো বটেই, এমনকী, পুলিশরাও অনেক সময় Pepper Spray ব্যবহার করে।

তারপরে তারা আমার সমস্ত জিনিশপত্র, ব্যাগ মোবাইল, এমনকী পানির বোতল কেড়ে নিয়ে আমাকে লক-আপে ঢুকালো, বাংলাদেশের সংবিধান অনুসারে যেকোন ব্যক্তিকে আর‍্যেস্ট করলে সে একটা টেলিফোন কল করার অধিকার রাখে, কিন্তু আমাকে একটা ফোনও কেউ করতে দেয় নাই।

আমার “আম্মা, আম্মা” বলে কান্নাকাটিতে এক কনস্টেবল খুব দয়াপরবশ হয়ে আমার বোনের ফোন নাম্বার নিয়েছিলো, উনিই পরে আমার দিপ্তী আপুকে কল দেয়, আপু আম্মুকে কল দেয়, আম্মু তখন আমার খালা-খালুকে নিয়ে বনানী থানায় রওনা দিছে।

এরমধ্যে তদন্ত অফিসার আমাকে জিজ্ঞাসাবাদ এর জন্য ডাকলো, যেহেতু তারা আমার ব্যাগ চেক করে সন্দেহজনক কিছু পায় নাই, সেহেতু তাদের মনে হইছে আমি মলম পার্টি নাও হতে পারি।

 

ওরিজিনাল পোস্টটি পড়তে ক্লিক করুন

Click to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Facebook

(ভিডিও)
অন্যান্য1 week ago

আলোচনায় ‘রস’ (ভিডিও)

মাসুমা রহমান নাবিলা (Masuma Rahman Nabila)। ছবি : সংগৃহীত
ঘটনা রটনা4 months ago

‘আয়নাবাজি’র নায়িকা মাসুমা রহমান নাবিলার বিয়ে ২৬ এপ্রিল

‘মিথ্যে’-র একটি দৃশ্যে সৌমন বোস ও পায়েল দেব (Souman Bose and Payel Deb in Mithye)
অন্যান্য4 months ago

বৃষ্টির রাতে বয়ফ্রেন্ড মানেই রোম্যান্টিক?

Bonny Sengupta and Ritwika Sen (ঋত্বিকা ও বনি। ছবি: ইউটিউব থেকে)
টলিউড4 months ago

বনি-ঋত্বিকার নতুন ছবির গান একদিনেই দু’লক্ষ

লাভ গেম-এর পর ঝড় তুলেছে ডলির মাইন্ড গেম (ভিডিও)
অন্যান্য4 months ago

লাভ গেম-এর পর ঝড় তুলেছে ডলির মাইন্ড গেম (ভিডিও)

ভিডিও5 months ago

সেলফির কুফল নিয়ে একটি দেখার মতো ভারতীয় শর্টফিল্ম (ভিডিও)

ঘটনা রটনা6 months ago

ইউটিউবে ঝড় তুলেছে যে ডেন্স (ভিডিও)

ওমর সানি এবং তিথির কণ্ঠে মাহফুজ ইমরানের ‌'কথার কথা' (প্রমো)
সঙ্গীত7 months ago

ওমর সানি এবং তিথির কণ্ঠে মাহফুজ ইমরানের ‌’কথার কথা’ (প্রমো)

সালমা কিবরিয়া ও শাদমান কিবরিয়া
সঙ্গীত7 months ago

বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে গান গাইলেন সালমা কিবরিয়া ও শাদমান কিবরিয়া

মাহিমা চৌধুরী (Mahima Chaudhry)। ছবি : ইন্টারনেট
ফিচার8 months ago

এই বলিউড নায়িকা কেন হারিয়ে গেলেন?

সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : তাহমিনা সানি
প্রকাশক : রামশংকর দেবনাথ
বিভাস প্রকাশনা কর্তৃক ৬৮-৬৯ প্যারীদাস রোড, বাংলাবাজার, ঢাকা-১১০০ থেকে প্রকাশিত।
ফোন : +88 01687 064507
ই-মেইল : rupalialo24x7@gmail.com
© ২০১৭ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | রূপালীআলো.কম