Connect with us

কবিতা

আবু জাফর খান-এর গুচ্ছ কবিতা

Published

on

আবু জাফর খান-এর গুচ্ছ কবিতা
আবু জাফর খান-এর গুচ্ছ কবিতা

ভোরের কুসুম

জানকী এবার তুমি পিঠ ফিরে শোও
আমার কোনও সাবিত্রী চাই না
আমার দু হাত ভরা সন্তাপের ইতিহাস
আমার যতখানি ঘুম তার চেয়ে অনেক বেশি অধিবাস
এই করে করে নীল জলের সমুদ্রে শেষমেশ ভাসিয়েছি
এক বিলম্ব জাহাজ।
জানকী পিঠ ফিরে শোও
কত আর পার করি মিথ্যের মন্ত্রতপঃ
এ সাগর বৈকালিক নয়, এ সাগর পুষ্পের নেশা
আমায় ছুঁতে হবে অনেক দূরের ভোর-কুসুম।
ইদানীং বৃষ্টি হয় খুব আমার বুকের ভেতর
কোনও এক শান্ত দ্বীপে ভেসে থাকা নলিনীর বুক…
আমাকে শয়ান রাখে যেন তার মখমল গোলাপি শরাব
ফিরিয়ে দেবে পৃথিবীর ডিঙাভরা ঘুম।
জানকী এবার তো পিঠ ফিরে শোও
আমি অ্যালবাট্রস, ছুঁয়ে ফেলি আকাশ ও সমুদ্রকে
তার সুগন্ধি রুমালি গোলাপ জল-সাঁতরে স্থির এখনও,
অরুণাভ ছায়ায় ডুবে আছে তার ব্যথার শরীর।
জানকী এবার তুমি পিঠ ফিরে শোও।

 

অনন্ত শূন্যের ভেতর

গৃহীর দ্বারের থেকে চলে গেছে যে-পথ
অন্তহীন আলোকসন্ন্যাসে,
সে পথে হেঁটে হেঁটে চলে গেলে তুমি
মাটি ছুঁলো একটি স্বাতি নত্রের জল;
মুহুর্মুহু নৈঃশব্দ্যের শাঁখ বেজে উঠলে…
আমি চোখ খুলে দেখলাম সন্ধেবাতি জ্বলেনি কোথাও
শমপুরের গাঁয়ে।
ঘাসে ঢাকা আলপথ, মাঠ-ঘাট কোথাও তোমার
পায়ের চিহ্ন নেই!
দৈব শিশিরে ভেজা পত্রালি, গুল্ম-ঝোপঝাড়
আগের মতোই আলোর বিন্যাস ছড়ায়;
শুধু আমার ঘরের জাদুচাবি দূর থেকে দূরতম নত্র বিন্দুর মতো
হারিয়ে গেল জ্যোৎস্না আর কৃষ্ণপরে ভেতর।
প্রার্থনাগৃহের সদর দরজা খুলে দিলে…
মন্দিরে শোরগোল উঠল,
বাঁশি হাতে শ্যামের বিগ্রহ কাঁদে
কোথাও শ্রীরাধিকা নেই।
পাথরের চোখে ঈশ্বরের জীবাশ্ম দেখল কেউ কেউ
আমি কেবল য়-ধরা যমুনার পুবপাড়ে বসে
বহুবিধ সাধনার রং মিশে যেতে দেখলাম আঁধারের গহনতায়।
আমার মাটির পাত্রে হঠাৎ নেমে আসা শূন্যতা এখন
অকপট প্রকট পরম, মন্দির সুনসান!
আমি জানি, খালি পাত্র বলে কিছুই থাকে না
শূন্য ঘটেও আকাশের উঁকি থাকে কিছু
শুধু আমার ধরণির ‘পরে সহসা শিথিলতার হিম হাওয়া নামে।

 

মন্দির পিঠের ইতিহাস

অতীতের এ সব পাথর-
মন্দির পিঠে বিভূত মুদ্রায় প্রেমের প্রাচীনতম ইতিহাস বহন করে চলে;
যেমন রাতগুলো নীল আকাশে ডুবে থাকে খুব গোপনে।
প্রিয়তমা শোনো,
তোমার আদি ইতিহাস এটিই
সভ্যতা নামার খোদাই চিহ্ন
মানুষের প্রেম ও প্রয়াণের যাত্রা এখান থেকেই।
প্রিয়তমা,
এ মৃত্যু নয়, সমুদয় বিভাজন ভেঙে মিলনের পরিব্রাজন
হাওয়ায় ভাসা বোধের বিষাদ ডিঙিয়ে-
উষ্ণাঙ্কের ওপরে ওঠা নিঃশ্বাসের ভাস্কর্য;
চোখের পাথুরে আরোপণ থেকে-
স্বপ্ন-বুনট ইতিহাসের সম্মুখে দাঁড়ানো।
এই ই তুমি এবং তোমার মুদ্রাঙ্কের গভীর নিশীথ!
এই যেমন আমার আঙুলের স্পর্শে বোঁটাসমেত
দুলে ওঠে এক্রোপলিশের চূড়া, দক্ষিণের পার্সেয়াস সাগর।

 

অ্যালবেডো হয়ে যাই

খুব কাছে এসে গেলে
ঘুমচোখে হাঁটার বিড়ম্বনা সে তো সইতেই হয়;
বুকের কাছে বুক, চোখের সীমায় চোখ
বাতাস কী করে ঢুকবে তবে?
খুব কাছে এসে গেলে
কষ্টেসৃষ্টে জানালা গলে একটু আলো ঢোকেও যদি,
দেহের বর্মে প্রতিফলিত হয়ে অ্যালবেডো হয়ে যায়;
ভালোবাসার খুব গড়াগড়ির মুখে
অজস্র আয়নার ভেতর, ঘর ও গ্রন্থির ভেতর
ভেঙে যায় দৈনন্দিন মুখচ্ছবি;
খুব কাছে এসে গেলে আমরা ক্রমশ বাকপটু হয়ে উঠি
চোখ দিয়ে না ছুঁতে পারি সমুদ্রকে না আকাশ।
আসলে সবখানেই খানিকটা জায়গার খুব দরকার!
‘ইশারা ঘুরিয়ে বৃত্ত’ নির্মাণের বিজ্ঞাপনের মতো
কেউ কেউ জড়াতে চায় ঋতুর লাবণ্য;
মিথ্যে হয়ে পড়ে সব, সম্মুখে কংক্রীটের অরণ্য দাঁড়ায়
কেউ কেউ পেরতে পারলেও
প্রতিধ্বনির নিনাদের ভেতর বৃত্তবন্দি হয়ে পড়ে কেউ।
প্রত্যহ কোনও না কোনও দামি কিছু
ভেঙে পড়ে কাচের মতো ঝনঝন;
আমরা বুঝতেই পারি না একটু জায়গার অভাবে
আমাদের একটাই পথ
মাঝপথে ভেঙে দু টুকরো হয়ে একদিন গতিপথ বদলে ফেলে,
আমরা নাগাল পাই না কেউ কারও।
এভাবেই বহুদিন বহুপথ হেঁটে
জীবনের কালো গ্রাফিতি এঁকে ফেলি
বিশ্লিষ্ট ব্যথার তলদেশে।

 

বরফের গান

ভালোবাসায় বরফের গান…
কী আশ্চর্য বৈপরীত্য!
লোকটি তবু নিপুণ সুর চড়ালে
শবের শরীর ছেড়ে চলে যায় আধিভৌতিক
বরফের সাদা রং।
অথচ সে নরম পালকের ওপর
স্থাপন করতে চেয়েছিল অস্ফুট স্বপ্নগুলি;
যত্নে বুনেছিল একান্ত কফিশপ, মিলেনিয়া পেরিয়ে যাওয়া
শীত সন্ধ্যার উষ্ণতা।
অথচ কতগুলি আঙুলের সার…
মরচে পড়া গল্পের মতো বিকেলগুলোয়
চুপ করে থেমে থাকে সাদা কাগজের এক কোণে,
ঠিক বরফকালের শবদেহ কোনও;
তার সমস্ত উৎপেণ জুড়ে কেবল শুকনো ছায়ারা হাঁটে।
অথচ লোকটি ফোটন কণার বিষণ্ন ডিঙিয়ে
আলোর মূর্ছনা উড়াতে চেয়েছিল,
সুরগুলি চড়িয়ে মিথ ও মেটাফোর ভেঙে
প্যারালাল করতে চেয়েছিল দ্বৈত যাত্রার রথ।
অথচ সে এখন ভাঙা বেহালা বরাবর…
আরেকটি বরফের গানে আরও একটি কঙ্কালের কথা ভাবে;
তার মসৃণ মেহগনি টেবিলের ওপর
সাদা খোলা খাতা শবের মতো পড়ে আছে।

Click to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Facebook

(ভিডিও)
অন্যান্য4 days ago

আলোচনায় ‘রস’ (ভিডিও)

মাসুমা রহমান নাবিলা (Masuma Rahman Nabila)। ছবি : সংগৃহীত
ঘটনা রটনা4 months ago

‘আয়নাবাজি’র নায়িকা মাসুমা রহমান নাবিলার বিয়ে ২৬ এপ্রিল

‘মিথ্যে’-র একটি দৃশ্যে সৌমন বোস ও পায়েল দেব (Souman Bose and Payel Deb in Mithye)
অন্যান্য4 months ago

বৃষ্টির রাতে বয়ফ্রেন্ড মানেই রোম্যান্টিক?

Bonny Sengupta and Ritwika Sen (ঋত্বিকা ও বনি। ছবি: ইউটিউব থেকে)
টলিউড4 months ago

বনি-ঋত্বিকার নতুন ছবির গান একদিনেই দু’লক্ষ

লাভ গেম-এর পর ঝড় তুলেছে ডলির মাইন্ড গেম (ভিডিও)
অন্যান্য4 months ago

লাভ গেম-এর পর ঝড় তুলেছে ডলির মাইন্ড গেম (ভিডিও)

ভিডিও5 months ago

সেলফির কুফল নিয়ে একটি দেখার মতো ভারতীয় শর্টফিল্ম (ভিডিও)

ঘটনা রটনা6 months ago

ইউটিউবে ঝড় তুলেছে যে ডেন্স (ভিডিও)

ওমর সানি এবং তিথির কণ্ঠে মাহফুজ ইমরানের ‌'কথার কথা' (প্রমো)
সঙ্গীত7 months ago

ওমর সানি এবং তিথির কণ্ঠে মাহফুজ ইমরানের ‌’কথার কথা’ (প্রমো)

সালমা কিবরিয়া ও শাদমান কিবরিয়া
সঙ্গীত7 months ago

বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে গান গাইলেন সালমা কিবরিয়া ও শাদমান কিবরিয়া

মাহিমা চৌধুরী (Mahima Chaudhry)। ছবি : ইন্টারনেট
ফিচার8 months ago

এই বলিউড নায়িকা কেন হারিয়ে গেলেন?

সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : তাহমিনা সানি
প্রকাশক : রামশংকর দেবনাথ
বিভাস প্রকাশনা কর্তৃক ৬৮-৬৯ প্যারীদাস রোড, বাংলাবাজার, ঢাকা-১১০০ থেকে প্রকাশিত।
ফোন : +88 01687 064507
ই-মেইল : rupalialo24x7@gmail.com
© ২০১৭ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | রূপালীআলো.কম